এই যে কালো মাটির বাসা , পূজা ২৩৩ | Ei je kalo matir basha

এই যে কালো মাটির বাসা | Ei je kalo matir basha গানটি রবীন্দ্রনাথের পূজা পর্বের ২৩৩ নম্বর গান | রবীন্দ্রনাথের কাব্যসাহিত্যের বৈশিষ্ট্য ভাবগভীরতা, গীতিধর্মিতা চিত্ররূপময়তা, অধ্যাত্মচেতনা, ঐতিহ্যপ্রীতি, প্রকৃতিপ্রেম, মানবপ্রেম, স্বদেশপ্রেম, বিশ্বপ্রেম, রোম্যান্টিক সৌন্দর্যচেতনা, ভাব, ভাষা, ছন্দ ও আঙ্গিকের বৈচিত্র্য, বাস্তবচেতনা ও প্রগতিচেতনা।

এই যে কালো মাটির বাসা | Ei je kalo matir basha

রাগ: ছায়ানট-কেদারা | তাল: দাদরা
রচনাকাল (বঙ্গাব্দ): ১৬ ভাদ্র, ১৩২১
রচনাকাল (খৃষ্টাব্দ): ২ সেপ্টেম্বর, ১৯১৪
রচনাস্থান: সুরুল
স্বরলিপিকার: দিনেন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

এই যে কালো মাটির বাসা , পূজা ২৩৩ | Ei je kalo matir basha
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

এই যে কালো মাটির বাসা :

এই-যে কালো মাটির বাসা শ্যামল সুখের ধরা–

এইখানেতে আঁধার-আলোয় স্বপন-মাঝে চরা ॥

এরই গোপন হৃদয় ‘পরে ব্যথার স্বর্গ বিরাজ করে

দুঃখে-আলো-করা ॥

বিরহী তোর সেইখানে যে একলা বসে থাকে–

হৃদয় তাহার ক্ষণে ক্ষণে নামটি তোমার ডাকে।

দুঃখে যখন মিলন হবে আনন্দলোক মিলবে তবে

সুধায়-সুধায়-ভরা ॥

 

কেমন করে তড়িৎ-আলোয় kemon kore torit aloy [ কবিতা ] - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

 

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কলকাতার এক ধনাঢ্য ও সংস্কৃতিবান ব্রাহ্ম পিরালী ব্রাহ্মণ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। বাল্যকালে প্রথাগত বিদ্যালয়-শিক্ষা তিনি গ্রহণ করেননি; গৃহশিক্ষক রেখে বাড়িতেই তার শিক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছিল।আট বছর বয়সে তিনি কবিতা লেখা শুরু করেন।১৮৭৪ সালে তত্ত্ববোধিনী পত্রিকা-এ তার “অভিলাষ” কবিতাটি প্রকাশিত হয়। এটিই ছিল তার প্রথম প্রকাশিত রচনা।১৮৭৮ সালে মাত্র সতেরো বছর বয়সে রবীন্দ্রনাথ প্রথমবার ইংল্যান্ডে যান।

 

AmarRabindranath.com Logo 252x68 px White এই যে কালো মাটির বাসা , পূজা ২৩৩ | Ei je kalo matir basha

 

১৮৮৩ সালে মৃণালিনী দেবীর সঙ্গে তার বিবাহ হয়। ১৮৯০ সাল থেকে রবীন্দ্রনাথ পূর্ববঙ্গের শিলাইদহের জমিদারি এস্টেটে বসবাস শুরু করেন।

আরও দেখুন:

মন্তব্য করুন