দুঃসময় কবিতা । dusamay kobita | চিত্রা কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

দুঃসময় কবিতা [ dusamay kobita ] টি কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর চিত্রা-কাব্যগ্রন্থের অংশ।

কাব্যগ্রন্থের নামঃ চিত্রা

কবিতার নামঃ দুঃসময়

দুঃসময় কবিতা । dusamay kobita | চিত্রা কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

দুঃসময় কবিতা । dusamay kobita | চিত্রা কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

বিলম্বে এসেছ, রুদ্ধ এবে দ্বার,

জনশূন্য পথ, রাত্রি অন্ধকার,

গৃহহারা বায়ু করি হাহাকার

  ফিরিয়া মরে।

তোমারে আজিকে ভুলিয়াছে সবে,

শুধাইলে কেহ কথা নাহি কবে,

এহেন নিশীথে আসিয়াছ তবে

  কী মনে করে।

এ দুয়ারে মিছে হানিতেছ কর,

ঝটিকার মাঝে ডুবে যায় স্বর,

ক্ষীণ আশাখানি ত্রাসে থরথর্‌

  কাঁপিছে বুকে।

যেথা একদিন ছিল তোর গেহ

ভিখারির মতো আসে সেথা কেহ?

কার লাগি জাগে উপবাসী স্নেহ

  ব্যাকুল মুখে।

দুঃসময় কবিতা । dusamay kobita | চিত্রা কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

ঘুমায়েছে যারা তাহারা ঘুমাক,

দুয়ারে দাঁড়ায়ে কেন দাও ডাক,

তোমারে হেরিলে হইবে অবাক

  সহসা রাতে।

যাহারা জাগিছে নবীন উৎসবে

রুদ্ধ করি দ্বার মত্ত কলরবে,

কী তোমার যোগ আজি এই ভবে

  তাদের সাথে।

দ্বারছিদ্র দিয়ে কী দেখিছ আলো,

বাহির হইতে ফিরে যাওয়া ভালো,

তিমির ক্রমশ হতেছে ঘোরালো

  নিবিড় মেঘে।

বিলম্বে এসেছ– রুদ্ধ এবে দ্বার,

তোমার লাগিয়া খুলিবে না আর,

গৃহহারা ঝড় করি হাহাকার

  বহিছে বেগে।

আরও দেখুনঃ

যোগাযোগ

মন্তব্য করুন

error: Content is protected !!