দ্বারে কবিতা | dare kobita | বিচিত্রতা কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

দ্বারে কবিতা [ dare kobita ] কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর বিচিত্রতা কাব্যগ্রন্থের অংশ।

দ্বারে

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

কাব্যগ্রন্থের নামঃ বিচিত্রিতা

কবিতার নামঃ দ্বারে

 

দ্বারে কবিতা | dare kobita | বিচিত্রতা কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

দ্বারে কবিতা | dare kobita | বিচিত্রতা কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

একা তুমি নিঃসঙ্গ প্রভাতে,

অতীতের দ্বার রুদ্ধ তোমার পশ্চাতে।

        সেথা হল অবসান

        বসন্তের সব দান,

উৎসবের সব বাতি নিবে গেল রাতে।

    সেতারের তার হল চুপ,

শুষ্কমালা, ভষ্মশেষ দগ্ধ গন্ধধূপ।

        কবরীর ফুলগুলি

        ধূলিতে হইল ধূলি,

লজ্জিত সকল সজ্জা বিরস বিরূপ।

    সম্মুখে উদাস বর্ণহীন

ক্ষীণছন্দ মন্দগতি তব রাত্রিদিন।

        সম্মুখে আকাশ খোলা,

        নিস্তব্ধ, সকল-ভোলা–

মত্ততার কলরব শান্তিতে বিলীন।

 

দ্বারে কবিতা | dare kobita | বিচিত্রতা কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

    আভরণহারা তব বেশ,

কজ্জলবিহীন আঁখি, রুক্ষ তব কেশ।

        শরতের শেষ মেঘে

        দীপ্তি জ্বলে রৌদ্র লেগে,

সেইমতো শোকশুভ্র স্মৃতি-অবশেষ।

    তবু কেন হয় যেন বোধ

অদৃষ্ট পশ্চাৎ হতে করে পথরোধ।

        ছুটি হল যার কাছে

        কিছু তার প্রাপ্য আছে,

নিঃশেষে কি হয় নাই সব পরিশোধ।

    সূক্ষ্মতম সেই আচ্ছাদন,

ভাষাহারা অশ্রুহারা অজ্ঞাত কাঁদন।

        দুর্লঙ্ঘ্য-যে সেই মানা

        স্পষ্ট যারে নেই জানা,

সবচেয়ে সুকঠিন অবন্ধ বাঁধন।

    যদি বা ঘুচিল ঘুমঘোর,

অসাড় পাখায় তবু লাগে নাই জোর।

        যদি বা দূরের ডাকে

        মন সাড়া দিতে থাকে,

তবুও বারণে বাঁধে নিকটের ডোর।

 

দ্বারে dare [ কবিতা ] -রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

    মুক্তিবন্ধনের সীমানায়

এমনি সংশয়ে তব দিন চলে যায়।

        পিছে রুদ্ধ হল দ্বার,

        মায়া রচে ছায়া তার,

কবে সে মিলাবে আছ সেই প্রতীক্ষায়।

আরও দেখুনঃ

Amar Rabindranath Logo

মন্তব্য করুন