প্রভু, খেলেছি অনেক খেলা , পূজা ৬২ | Probhu khelechi onek khela

প্রভু, খেলেছি অনেক খেলা , পূজা ৬২ | Probhu khelechi onek khela  রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এফআরএএস (৭ মে ১৮৬১ – ৭ আগস্ট ১৯৪১; ২৫ বৈশাখ ১২৬৮ – ২২ শ্রাবণ ১৩৪৮ বঙ্গাব্দ) ছিলেন অগ্রণী বাঙালি কবি, ঔপন্যাসিক, সংগীতস্রষ্টা, নাট্যকার, চিত্রকর, ছোটগল্পকার, প্রাবন্ধিক, অভিনেতা, কণ্ঠশিল্পী ও দার্শনিক।তাকে বাংলা ভাষার সর্বশ্রেষ্ঠ সাহিত্যিক মনে করা হয়।

 

প্রভু, খেলেছি অনেক খেলা , পূজা ৬২ | Probhu khelechi onek khela

রাগ: দেশ

তাল: একতাল

রচনাকাল (বঙ্গাব্দ): ১৩০৫

 

প্রভু, খেলেছি অনেক খেলা , পূজা ৬২ | Probhu khelechi onek khela
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

প্রভু, খেলেছি অনেক খেলা:

প্রভু, খেলেছি অনেক খেলা– এবে তোমার ক্রোড় চাহি।

শ্রান্ত হৃদয়ে, হে, তোমারি প্রসাদ চাহি।।

আজি চিন্তাতপ্ত প্রাণে তব শান্তিবারি চাহি।।

আজি সর্ববিত্ত ছাড়ি তোমায় নিত্য-নিত্য চাহি।।

 

প্রভু, খেলেছি অনেক খেলা , পূজা ৬২ | Probhu khelechi onek khela
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কলকাতার এক ধনাঢ্য ও সংস্কৃতিবান ব্রাহ্ম পিরালী ব্রাহ্মণ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।বাল্যকালে প্রথাগত বিদ্যালয়-শিক্ষা তিনি গ্রহণ করেননি; গৃহশিক্ষক রেখে বাড়িতেই তার শিক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছিল।আট বছর বয়সে তিনি কবিতা লেখা শুরু করেন।১৮৭৪ সালে তত্ত্ববোধিনী পত্রিকা-এ তার “অভিলাষ” কবিতাটি প্রকাশিত হয়।

 

১৯০১ সালে তিনি পশ্চিমবঙ্গের শান্তিনিকেতনে ব্রহ্মচর্যাশ্রম প্রতিষ্ঠা করেন এবং সেখানেই পাকাপাকিভাবে বসবাস শুরু করেন। ১৯০২ সালে তার পত্নীবিয়োগ হয়। ১৯০৫ সালে তিনি বঙ্গভঙ্গ-বিরোধী আন্দোলনে জড়িয়ে পড়েন। ১৯১৫ সালে ব্রিটিশ সরকার তাকে ‘নাইট’ উপাধিতে ভূষিত করেন।কিন্তু ১৯১৯ সালে জালিয়ানওয়ালাবাগ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে তিনি সেই উপাধি ত্যাগ করেন। ১৯২১ সালে গ্রামোন্নয়নের জন্য তিনি শ্রীনিকেতন নামে একটি সংস্থা প্রতিষ্ঠা করেন।১৯২৩ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্বভারতী প্রতিষ্ঠিত হয়।

 

প্রভু, খেলেছি অনেক খেলা , পূজা ৬২ | Probhu khelechi onek khela
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]
আরও দেখুনঃ

মন্তব্য করুন