স্থায়ী-অস্থায়ী sthayi osthayi [ কবিতা ] – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

স্থায়ী-অস্থায়ী sthayi osthayi [ কবিতা ]

– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

কাব্যগ্রন্থ : ক্ষণিকা [ ১৯০০ ]

কবিতার শিরোনামঃ স্থায়ী-অস্থায়ী

স্থায়ী-অস্থায়ী sthayi osthayi [ কবিতা ] - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

স্থায়ী-অস্থায়ী sthayi osthayi [ কবিতা ] – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

স্থায়ী-অস্থায়ী sthayi osthayi [ কবিতা ] - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

তুলেছিলেম কুসুম তোমার

            হে সংসার, হে লতা!

পরতে মালা বিঁধল কাঁটা

            বাজল বুকে ব্যথা,

            হে সংসার, হে লতা!

বেলা যখন পড়ে এল,

            আঁধার এল ছেয়ে,

দেখি তখন চেয়ে–

তোমার গোলাপ গেছে, আছে

            আমার বুকের ব্যথা,

                 হে সংসার, হে লতা!

স্থায়ী-অস্থায়ী sthayi osthayi [ কবিতা ] - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

আরো তোমার অনেক কুসুম

            ফুটবে যথা-তথা–

অনেক গন্ধ, অনেক মধু,

            অনেক কোমলতা,

            হে সংসার, হে লতা!

সে ফুল তোলার সময় তো আর

            নাহি আমার হাতে।

            আজকে আঁধার রাতে

আমার গোলাপ গেছে, কেবল

            আছে বুকের ব্যথা,

                 হে সংসার, হে লতা!

স্থায়ী-অস্থায়ী sthayi osthayi [ কবিতা ] - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
আরও পড়ুনঃ

বিচারক bicharak [ কবিতা ]- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

কেউ চেনা নয় keu chena noy [ কবিতা ] রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

ভোরের আলো আঁধারে bhorer alo adhare [ কবিতা ] রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

মনে হয়েছিল আজ সব-কটা দুর্গ্রহ mone hoyechhilo aj sob kotha durgroho [ কবিতা ] রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

মন্তব্য করুন

error: Content is protected !!