স্বার্থ কবিতা । swartho kobita । চৈতালী কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

স্বার্থ কবিতাটি [ swartho kobita ] কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর চৈতালী-কাব্যগ্রন্থের অংশ। এটি আশ্বিন, ১৩০৩ (১৮৯৬ খ্রীস্টাব্দ) বঙ্গাব্দে প্রকাশিত হয়। এতে সর্বমোট ৭৮টি কবিতা রয়েছে। এটি রবীন্দ্রনাথের কাব্য রচনার “চিত্রা-চৈতালি পর্ব”-এর অন্তর্গত একটি উল্লেখযোগ্য সৃষ্টি।

কাব্যগ্রন্থের নামঃ চৈতালী

কবিতার নামঃ স্বার্থ 

স্বার্থ কবিতা । swartho kobita । চৈতালী কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

স্বার্থ কবিতা । swartho kobita । চৈতালী কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

কে রে তুই, ওরে স্বা-র্থ, তুই কতটুকু,

তোর স্পর্শে ঢেকে যায় ব্রহ্মান্ডের মুখ,

লুকায় অনন্ত সত্য–স্নেহ সখ্য প্রীতি

মুহূর্তে ধারণ করে নির্লজ্জ বিকৃতি,

থেমে যায় সৌন্দর্যের গীতি চিরন্তন

তোর তুচ্ছ পরিহাসে। ওগো বন্ধুগণ,

সব স্বা-র্থ পূর্ণ হোক। ক্ষুদ্রতম কণা

ভান্ডারে টানিয়া আনো–কিছু ত্যজিয়ো না।

স্বার্থ কবিতা । swartho kobita । চৈতালী কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

আমি লইলাম বাছি চিরপ্রেমখানি,

জাগিছে যাহার মুখে অনন্তর বাণী

অমৃতে অশ্রুতে মাখা। মোর তরে থাক্‌

পরিহাস্য পুরাতন বিশ্বাস নির্বাক্‌।

থাক্‌ মহাবিশ্ব, থাক্‌ হৃদয়-আসীনা

অন্তরের মাঝখানে যে বাজায় বীণা।

 

স্বার্থ কবিতা । swartho kobita । চৈতালী কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

আরও দেখুনঃ 

মন্তব্য করুন