উৎসর্গ কাব্যগ্রন্থ ১৯০৪ | কাব্যগ্রন্থ | কবিতা সূচি | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

উৎসর্গ কাব্যগ্রন্থ হল রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কর্ত্তৃক রচিত একটি বাংলা কাব্যগ্রন্থ। এটি ১৯১৪ সালে প্রকাশিত হয়। এটি রবীন্দ্রনাথের কাব্য রচনার “অন্তবর্তী পর্ব”-এর অন্তর্গত একটি উল্লেখযোগ্য সৃষ্টি। রবীন্দ্রনাথ গীতাঞ্জলির ইংরেজি অনুবাদ সং অফারিংসে উৎসর্গ থেকে একটি কবিতা অন্তর্ভুক্ত করেছেন।

 

উৎসর্গ ১৯০৪ | কাব্যগ্রন্থ | কবিতা সূচি | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

উৎসর্গ কাব্যগ্রন্থ কবিতা সূচিঃ

অচির বসন্ত হায় এল, গেল চলে
অত চুপি চুপি কেন কথা কও
আকাশ-সিন্ধু-মাঝে এক ঠাঁই
আছি আমি বিন্দুরূপে, হে অন্তরযামী
আজ মনে হয় সকলেরই মাঝে

আজি হেরিতেছি আমি
আজিকে গহন কালিমা লেগেছে গগনে
আপনারে তুমি করিবে গোপন
আমাদের এই পল্লিখানি পাহাড় দিয়ে ঘেরা
আমার খোলা জানালাতে
আমার মাঝারে যে আছে কে গো সে
আমি চঞ্চল হে

 

উৎসর্গ ১৯০৪ | কাব্যগ্রন্থ | কবিতা সূচি | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

আমি যারে ভালোবাসি সে ছিল এই গাঁয়ে
আলো নাই, দিন শেষ হল, ওরে
আলোকে আসিয়া এরা লীলা করে যায়
উৎসর্গ (উৎসর্গ)
ওরে আমার কর্মহারা, ওরে আমার সৃষ্টিছাড়া
ওরে পদ্মা, ওরে মোর রাক্ষসী প্রেয়সী
কত দিবা কত বিভাবরী
কাল যবে সন্ধ্যাকালে বন্ধুসভাতলে
কী কথা বলিব বলে

কুঁড়ির ভিতর কাঁদিছে গন্ধ অন্ধ হয়ে
কেবল তব মুখের পানে চাহিয়া
ক্ষান্ত করিয়াছ তুমি আপনারে
চিরকাল একি লীলা গো
তুমি আছ হিমাচল ভারতের অনন্তসঞ্চিত
তোমার বীণায় কত তার আছে
তোমারে পাছে সহজে বুঝি
তোমায় চিনি বলে আমি করেছি গরব
দিয়েছ প্রশ্রয় মোরে, করুণানিলয়
দুয়ারে তোমার ভিড় ক’রে যারা আছে
দেখো চেয়ে গিরির শিরে

 

উৎসর্গ ১৯০৪ | কাব্যগ্রন্থ | কবিতা সূচি | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

ধূপ আপনারে মিলাইতে চাহে গন্ধে

নব বৎসরে করিলাম পণনা জানি কারে দেখিয়াছি
নানা গান গেয়ে ফিরি নানা লোকালয়
পথের পথিক করেছ আমায়
পাগল হইয়া বনে বনে ফিরি
বাহির হইতে দেখো না এমন করে
বিরহবৎসর-পরে মিলনের বীণা
ভারতসমুদ্র তার বাষ্পোচ্ছ্বাস নিশ্বসে গগনে
ভারতের কোন্‌ বৃদ্ধ ঋষির তরুণ মূর্তি তুমি
ভোরের পাখি ডাকে কোথায়
মন্ত্রেসে যে পূত রাখীররাঙা সুতো
মোর কিছু ধন আছে সংসারে
যদি ইচ্ছা কর তবে কটাক্ষে হে নারী

রোগীর শিয়রে রাত্রে একা ছিনু জাগি
শূন্য ছিল মন
সব ঠাঁই মোর ঘর আছে
সাঙ্গ হয়েছে রণ
সে তো সে দিনের কথা, বাক্যহীন যবে
সেদিন কি তুমি এসেছিলে ওগো
হায় গগন নহিলে তোমারে ধরিবে কে বা
হে জনসমুদ্র, আমি ভাবিতেছি মনে
হে নিস্তব্ধ গিরিরাজ
হে পথিক, কোন্‌খানে চলেছ কাহার পানে
.হে ভারত, আজি নবীন বর্ষে
হে রাজন তুমি আমারে
হে হিমাদ্রি, দেবতাত্মা, শৈলে শৈলে আজিও তোমার

 

উৎসর্গ ১৯০৪ | কাব্যগ্রন্থ | কবিতা সূচি | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

 

আরও দেখুনঃ 

শিশু ( ১৯০৩ ) | কাব্যগ্রন্থ | কবিতা সূচি | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

মন্তব্য করুন