তপোবন কবিতা । tapoban kobita | চৈতালী কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

তপোবন কবিতাটি [ tapoban kobita ] কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর চৈতালী-কাব্যগ্রন্থের অংশ।

কাব্যগ্রন্থের নামঃ চৈতালী

কবিতার নামঃ তপোবন

তপোবন কবিতা । tapoban kobita | চৈতালী কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

তপোবন কবিতা । tapoban kobita | চৈতালী কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

মনশ্চক্ষে হেরি যবে ভারত প্রাচীন

পুরব পশ্চিম হতে উত্তর দক্ষিণ

মহারণ্য দেখা দেয় মহাচ্ছায়া লয়ে।

রাজা রাজ্য-অভিমান রাখি লোকালয়ে

অশ্বরথ দূরে বাঁধি যায় নতশিরে

গুরুর মন্ত্রণা লাগি– স্রোতস্বিনীতীরে

মহর্ষি বসিয়া যোগাসনে, শিষ্যগণ

বিরলে তরুর তলে করে অধ্যয়ন

প্রশান্ত প্রভাতবায়ে, ঋষিকন্যাদলে

 

তপোবন কবিতা । tapoban kobita | চৈতালী কাব্যগ্রন্থ | রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর [ Rabindranath Tagore ]

পেলব যৌবন বাঁধি পরুষ বল্কলে

আলবালে করিতেছে সলিল সেচন।

প্রবেশিছে বনদ্বারে ত্যজি সিংহাসন

মুকুটবিহীন রাজা পক্ককেশজালে

ত্যাগের মহিমাজ্যোতি লয়ে শান্ত ভালে।

আরও দেখুনঃ

যোগাযোগ

মন্তব্য করুন